কাপড়ে ফুটে উঠছে বাংলার চিরাচরিত রূপ

ফিরোজ আহম্মেদ ১০:৪৬, ৯ এপ্রিল ২০১৯

বাঙালির প্রাণের উৎসব পহেলা বৈশাখকে রাঙাতে রং বেরং-এর শাড়ি তৈরিতে ব্যস্ত সিরাজগঞ্জের তাঁতিরা। বাহারি রং আর বিভিন্ন ছাপে কাপড়ে ফুটে উঠছে বাংলার চিরাচরিত রূপ। তবে রং, সুতা ও শাড়ি তৈরির উপকরণের মূল্য বৃদ্ধির কারণে খুব একটা লাভ হচ্ছে না বলে জানান তাঁতিরা।
পহেলা বৈশাখকে উৎসবমুখর ও আনন্দময় করতে বৈশাখী শাড়ী তৈরিতে রাত দিন ব্যস্ত সময় পার করছেন সিরাজগঞ্জের বেলকুচি, এনায়েতপুর ও শাহজাদপুর উপজেলার তাঁতিরা। বাঙালি নারীদের সাজাতে বৈশাখী শাড়ীতে রং আর ছাপে ফুটে উঠছে ঢাক-ঢোল, একতারা, হাতপাখা, কুলা, দোয়েলপাখিসহ বাংলার বিভিন্ন ঐতিহ্য। এসব শাড়ি এখান থেকে ছড়িয়ে পড়ছে দেশের বিভিন্ন জেলায়। তবে রং, সুতা ও শাড়ি তৈরির উপকরণের অস্থিতিশীল বাজারের কারণে তেমন লাভ হচ্ছে না বলে জানান তাঁত মালিকরা।
তারা বলেন, সুতার দাম অনেক বেশি। দাম নিয়ন্ত্রণে থাকলে আমরা বিক্রি করে একটু সুবিধা পেতাম।
শিল্পটির আরো প্রসার ঘটাতে সরকারি পৃষ্ঠপোষকতার দাবি জানালেন সিরাজগঞ্জ চেম্বার অব কমার্সের পরিচালক টি এম রিজভী।
তিনি বলেন, সরকারের কাছে জোর দাবি থাকবে রঙ, সুতার দাম মনিটরিং করার পাশাপাশি এদের মনিটরিং করার। তাহলে এই শিল্পকে আরও এগিয়ে নিয়ে যাওয়া সম্ভব।
জেলার তাঁতিদের তৈরি এসব বৈশাখী শাড়ি সর্বনিম্ন ১৫০ টাকা থেকে ৩ হাজার টাকায় পাইকারি দরে বিক্রি হচ্ছে।

পাঠকের মন্তব্য

লাইভ

টপ