সর্বশেষ :

কালীগঞ্জে ২২ ভুয়া পরীক্ষার্থীকে বহিষ্কার

নুরনবী সরকার, লালমনিরহাট ০৮:২৪, ২০ নভেম্বর ২০১৯

ভুয়া ছাত্র-ছাত্রীদের দিয়ে লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ উপজেলায় উপজেলায় প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী (পিইসি ও এবতেদায়ী) পরীক্ষা নেওয়া হচ্ছে। অভিযোগ রয়েছে, মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সপ্তম-অষ্টম শ্রেণীর শিক্ষার্থীরা সঠিক পরীক্ষার্থী অনুপস্থিত থাকায় তাদের হয়ে ভুয়া পরীক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছে। প্রবেশপত্রের নামের সাথে অনেক পরীক্ষার্থীর নাম-চেহারা মিলছে না।
এমন অভিযোগে পেয়ে (১৯ মঙ্গলবার) উপজেলার চামটাহাট উচ্চ বিদ্যালয়ের কেন্দ্র সচিব গোলাম মোস্তাফা লেবু ওই কেন্দ্রে পরিদর্শনে গিয়ে ২২ শিক্ষার্থী ভুয়া পরিচয় মিলে যা। পরে অভিযোগের সত্যতা পেয়ে ২২ শিক্ষার্থীকে বহিস্কার করেন। এদিকে ২২ ভুয়া শিক্ষার্থীকে মুচলেকা নিয়ে তাদের ছেড়ে দিয়েছে কেন্দ্রের সচিব।
বহিস্কৃত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলো হচ্ছে, কৌটারী জহিরুল হক সতন্ত্র এবতেদায়ী মাদ্রাসা(১), কৌটারী সামাদিয়া সতন্ত্র এবতেদায়ী মাদ্রাসা (১), তালুক শাখাতী একরামিয়া সতন্ত্র এবতেদায়ী মাদ্রাসা (৬), বাবুর ডাঙ্গা রহমানিয়া সতন্ত্র এবতেদায়ী মাদ্রাসা (৫), দক্ষিন মুসরাত মদাতী সতন্ত্র এবতেদায়ী মাদ্রাসা (৪), গুটিপাড়া খাদিজা খাতুন সতন্ত্র এবতেদায়ী মাদ্রাসা (২) মৌজা শাখাতী গৌছিয়া সতন্ত্র এবতেদায়ী মাদ্রাসা (৩)।
চামটাহাট উচ্চ বিদ্যালয়ের কেন্দ্র সচিব গোলাম মোস্তাফা লেবু জানান, প্রবেশপত্রের সাথে নাম-চেহারা মিল না থাকায় তাদের বহিস্কার করা হয়েছে। আটক শিক্ষার্থীদের কোনো অভিভাবক না আসায় তাদের কাছ থেকে মুচলেকা নিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। শিক্ষার্থীরা জানান, বিভিন্ন শিক্ষা বিভিন্ন স্কুল ও মাদ্রাসার সপ্তম ও অষ্টম শ্রেনীর শিক্ষার্থী।  ইবতেদায়ী শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় ২২জন শিক্ষার্থীকে শিক্ষকরা ভাড়ায় পরীক্ষায় প্রক্সি দিচ্ছে।
এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রবিউল হাসান জানান,  অভিযোগে প্রমাণ পাওয়ায় তাদেরকে বহিস্কার করা হয়েছে। অভিযুক্ত মাদ্রাসার বিরুদ্ধে বিধি অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

পাঠকের মন্তব্য

লাইভ

টপ