সর্বশেষ :

গণমানুষের ভালোবাসায় সিক্ত বীর মুক্তিযোদ্ধা, সাবেক মেয়র “খোকা”

নিউজবক্স ডেক্স ০২:২১, ৮ নভেম্বর ২০১৯

নয়াপল্টন বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে বিএনপির প্রয়াত ভাইস চেয়ারম্যান ও অবিভক্ত ঢাকা সিটি করপোরেশনের শেষ মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা সাদেক হোসেন খোকার জানাজা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
দুপুর ২টায় জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।এর আগে বেলা ১টা থেকে জনস্রোতে পল্টনে দুই পাশের সড়ক বন্ধ হয়ে যায়। বন্ধ হয়ে যায় যান চলাচল। পেুরো সড়কজুড়ে তিল ধারনের স্থান ছিল না।
জানাজায় আসা নেতারা বলছিলেন, এতো লোক, এতেই প্রমাণ করে খোকা কতো জনপ্রিয় ছিলেন! এতো জনপ্রিয়তা থাকা সত্ত্বেও আওয়ামী প্রতিহিংসার শিকার হয়ে বিদেশের মাটিতেই শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করতে হলো খোকাকে।
খোকার মরদেহ পৌঁছার পর লাশবাহী গাড়ির কাছে যেতে চরম বেগ পেতে হয়েছে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায় ও বিএনপি নেতা মিজানুর রহমান মিনুকে।
মরদেহের কাছে পৌঁছে জানাজার আগে সবাইকে সুশৃঙ্খলভাবে দাঁড়াতে অনুরোধ করেন মহাসচিব। তিনি বলেন, ‘আজ আমাদের জন্য শোকের দিন।তিনি পাঁচ বছর দেশের বাইরে ছিলেন। তিনি প্রতিহিংসার শিকার হয়েছেন। তিনি যুদ্ধ করে এদেশে স্বাধীন করেছেন। সেই দেশের মাটিতে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করতে পারেননি।’
মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আমাদের নেত্রী বেগম খালেদা জিয়াও কারাগারে। তিনি খোকাকে শেষ দেখাও দেখতে পারলেন না।’
সাদেক হোসেন খোকার ছেলে ইশরাক হোসেন বলেন, ‘বাবার কাছে গিয়ে আমি দেশে ফেরার বিষয়ে জানতে চেয়েছিলাম। তখন বাবা খুব সামান্য কথা বলতে পারতেন। তখন তিনি বলেন, বিএনপি চেয়ারপাসনের কথা ছাড়া তিনি কিছু করবেন না। তিনি বলেছেন, সরকারের সাথে লিয়াজোঁ করে দেশে আসবেন না।তিনি মারা গেলে তারপর যেন তার লাশ আসে। বাবা বলেছিলেন শেষ বয়সে দালাল হয়ে মরতে চাই না।’
জানাজার পর বিএনপির নেতা কর্মীরা ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। এর আগে সকালে জাতীয় সংসদের দক্ষিণ প্লাজায় জানাজা শেষে বেলা ১২ টায় সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য শহীদ মিনারে নেয়া হয় খোকার মরদেহ। সেখানে বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ সারিবদ্ধভাবে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।
পল্টনে জানাজার পর নেওয়া হয় দক্ষিণ সিটি করপোরেশনে। সেখানে বেলা ৩টায় নামাজে জানাজার পর ধূপখোলা মাঠে জানাজার জন্য নেয়া হয়। বিকেলেই জুরাইনে মায়ের কবরের পাশে খোকাকে দাফন করা হয়।
ক্যান্সারে আক্রান্ত খোকা নিউইয়র্কের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বাংলাদেশ সময় ৪ নভেম্বর দুপুরে মারা যান। ৭ নভেম্বর সকাল তার মরদেহ দেশে আনা হয়।২০১৪ সাল থেকে চিকিৎসার জন্য তিনি নিউইয়র্কে ছিলেন।
তিন বারের নির্বাচিত সংসদ সদস্য, দুই বারের মন্ত্রী ও ২০০২ সাল থেকে ২০১১ সাল পর্যন্ত অবিভক্ত ঢাকা সিটি করপোরেশনের মেয়র ছিলেন সাদেক হোসেন খোকা।

পাঠকের মন্তব্য

লাইভ

টপ