সর্বশেষ :

জাকির নায়েক বর্ণবাদী বিদ্বেষ ছড়াচ্ছেন-ড. মাহাথির

অনলাইনডেক্স ০৯:৩৬, ১৯ আগস্ট ২০১৯

মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী ড. মাহাথির মোহাম্মদ আলোচিত ইসলামি বক্তা ড. জাকির নায়েক সম্পর্কে বলেছেন, তাঁকে যে সুবিধা দেয়া হয়েছে তার সীমা অতিক্রম করেছেন। তিনি বলেন, এটা পরিস্কার জাকির নায়েক বর্ণবাদী বিদ্বেষ ছড়াচ্ছেন। মালয় মেইল ডটকম
জাকির নায়েক এর আগে চীনা মুসলিমদের দেশটি থেকে বের করে দেয়ার দাবি জানিয়েছেন।
নায়েক তখন বলেন, “মানুষ আমাকে ‘অতিথি’ হিসেবে আখ্যা দিয়েছে। কিন্তু এখানকার চীনা মুসলিমরা আরও পুরোনো অতিথি। তারা এখানকার বাসিন্দা নয়। এখন আপনি যদি নতুন অতিথিকে বের করতে চান, তার আগে পুরোনো অতিথিকে বের করে দেয়া উচিত।” এ মন্তব্যের বিরুদ্ধে প্রতিবাদের ঝড় উঠেছে মালয়েশিয়ায়।
মাহাথির বলেন, আমি জানি না কে জাকির নায়েককে স্থায়ী বসবাসের সুযোগ দিয়েছে। কিন্তু স্থায়ী বাসিন্দা হলেও আপনি রাজনীতিতে অংশ নিতে পারেন না। আপনি ইসলাম নিয়ে কথা বলতে পারেন, বক্তব্য দিতে পারেন, কিন্তু তিনি যা করেছেন (রাজনীতি করেছেন), যখন তিনি বলেছেন চীনাদের ফিরিয়ে দিতে, এটা পরিস্কার যে তিনি বর্ণবাদী রাজনীতি শুরু করতে চাইছেন।
এ ছাড়া সপ্তাহখানেক আগে জাকির নায়েক এক বক্তব্যে তিনি বলেন, ভারতে মুসলিমদের তুলনায় মালয়েশিয়ায় হিন্দুরা ১০০ শতাংশের বেশি সুযোগ-সুবিধা ভোগ করছে।
এর প্রতিক্রিয়ায় মাহাথির মোহাম্মদ বলেন, তিনি যা বলেছেন তা খুব খারাপ। মানুষ চেষ্টা করে এসব বিষয়ে না বলতে। এমনকী আমিও এসব বলতে নারাজ। যাই হোক এখন পুলিশ তদন্ত করছে বিষয়টি যাতে তিনি সরকারের আইন মেনে চলেন।
নিজের বক্তৃতা নিয়ে ২০১৬ সালে তীব্র আলোচনা-সমালোচনার মুখে পড়েন জাকির নায়েক। সে সময় তার বিরুদ্ধে অর্থ পাচার ও উগ্রপন্থাকে উসকে দেওয়ার অভিযোগ তুলেছিল ক্ষমতাসীন দল ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি)। একই অভিযোগে তার বিরুদ্ধে মামলাও হয়। বন্ধ করে দেওয়া হয় তার প্রতিষ্ঠিত ইসলামিক রিসার্চ ফাউন্ডেশন (আইআরএফ) ও পিস টিভি।
অভিযোগ ওঠার পর ২০১৬ সালের ১ জুলাই ভারত ছেড়ে যেতে বাধ্য হন জাকির নায়েক। ভারতে মামলা হওয়ার পর জাকির নায়েক মালয়েশিয়ায় আশ্রয় চাইলে তাকে স্থায়ীভাবে বসবাসের অনুমতি দেয় তৎকালীন নাজিব রাজাক সরকার। এরপর থেকে তিনি মালয়েশিয়ার পুত্রজায়া শহরে বসবাস করে আসছেন।
এখন বিতর্কিত বক্তব্যের পর মালয়েশিয় পুলিশের তদন্তের মুখেও পড়েছেন জাকির। দেশটির প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছেন, পুলিশের তদন্তের পর জাকির নায়েক বিষয়ে পরবর্তী সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হবে।

পাঠকের মন্তব্য

লাইভ

টপ