সর্বশেষ :

ডাকাতির প্রস্তুতিকালে ১০ জনকে আটক

নিউজবক্স ডেক্স ১০:১০, ২৮ জুন ২০১৯

রাজধানীর মোহাম্মদপুর ও তুরাগ থানাধীন এলাকায় পৃথক অভিযানে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে ১০ জনকে আটক করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)। এ সময় পাইনগানসহ দেশীয় অস্ত্র ও ডাকাতির সরঞ্জাম জব্দ করা হয়।
বৃহস্পতিবার রাতে র‌্যাব-২ মোহাম্মদপুরে ও র‌্যাব-১ এর পৃথক দল তুরাগ এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করে।
র‌্যাব-২ এর সহকারী পরিচালক এএসপি মোহাম্মদ সাইফুল মালিক জানান, বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে র‌্যাব-২ এর একটি দল জানতে পারে, মোহাম্মদপুর থানাধীন শ্যামলী শিশু পার্কের ভেতরে অন্ধকারে দেশীয় অস্ত্র-সরঞ্জামাদিসহ একদল ডাকাত ডাকাতি করার উদ্দেশে অবস্থান করছে। এরপর র‌্যাব সদস্যরা উপস্থিত হলে পালানোর সময় শামীম (২৮), আদু (২৩), রাব্বী (১৮), রতন দাস (২২), ও আজিজুল হক (১৮) নামে পাঁচজনকে আটক করা হয়।
জিজ্ঞাসাবাদে আটকরা জানায়, তারা একটি সংঘবদ্ধ ডাকাত দলের সক্রিয় সদস্য। রাতে তারা এ রকম দুই বা ততোধিক দল একত্র হয়ে নির্দিষ্ট ফ্ল্যাটে বা ফাঁকা বাড়িতে গ্রিল কেটে ও তালা ভেঙে প্রবেশ করে ডাকাতি করে থাকে।
তারা দীর্ঘদিন ধরে ঢাকার সুবিধাজনক স্থানে লোকজনদের চাপাতি, ছোরা, চাকু ও অন্যান্য দেশীয় অস্ত্র দিয়ে ভয় দেখিয়ে ছিনতাই ও ডাকাতি করে আসছিল।
অন্যদিকে বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে র‌্যাব-১ এর একটি দল তুরাগ থানাধীন কামারপাড়া তালতলায় নির্মাণাধীন মক্কা টাওয়ারের সামনে সংঘবদ্ধ ডাকাত দলের অবস্থানের তথ্য জানতে পেরে অভিযানে যায়।
মক্কা টাওয়ারের সামনে থেকে ডাকাত দলের খোকন মিয়া (৪২), বাবুল (৪৫), নূর নবী (৩৮), মাতবর আলী (৫০) ও সিরাজুল ইসলাম (৩২) নামে পাঁচজনকে আটক করা হয়।
র‌্যাব-১ এর অধিনায়ক (সিও) লেফটেন্যান্ট কর্নেল সারওয়ার-বিন-কাশেম জানান, জিজ্ঞাসাবাদে আটকরা সংঘবদ্ধ ডাকাত দলের সদস্য বলে স্বীকার করেছে। তারা সাধারণ পথচারী, বাসযাত্রী এবং মোটরসাইকেল আরোহীদের মারধর এবং অস্ত্রের ভয়ভীতি দেখিয়ে প্রাইভেটকার, মোটরসাইকেল, গাড়িসহ নগদ টাকা ও মোবাইল, স্বর্ণালঙ্কার ডাকাতি ও ছিনতাই করে আসছে। পৃথক অভিযানে আটকদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন বলে জানিয়েছে র‌্যাব।

পাঠকের মন্তব্য

লাইভ

টপ