তথ্যপ্রযুক্তি সেবা গ্রহণ ও ব্যবসা সম্প্রসারণের লক্ষ্যে বেসিস-ক্যানচ্যাম বাংলাদেশ চুক্তি স্বাক্ষর

নিউজবক্স ডেক্স ১১:৫১, ৩১ আগস্ট ২০১৯

দেশের তথ্যপ্রযুক্তি সেবা গ্রহণ এবং ব্যবসা সম্প্রসারণের লক্ষ্যে বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেসের (বেসিস) সঙ্গে কানাডা-বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির (ক্যানচ্যাম বাংলাদেশ) চুক্তি স্বাক্ষর হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার বেসিস সভাকক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন বেসিস সভাপতি সৈয়দ আলমাস কবীর এবং ক্যানচ্যাম বাংলাদেশ সভাপতি মাসুদুর রহমান। এ সময় অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশে নিযুক্ত কানাডার হাইকমিশনার বেনোয়া প্রেফান্তে। তিনি বলেন, কানাডায় বাংলাদেশের রফতানি গত ৫ বছরে ৩৭ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। আশা করছি, ২০২১ সালের মধ্যে কানাডা থেকে বাংলাদেশের রফতানি আয় ৩ বিলিয়ন ডলারে দাঁড়াবে। রফতানি আয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে তথ্যপ্রযুক্তি খাত। আশা করি, ক্যানচ্যাম বাংলাদেশের সঙ্গে এ চুক্তি কানাডায় তথ্যপ্রযুক্তি খাতের ব্যবসা সম্প্রসারণে সাহায্য করবে। আলমাস কবীর বলেন, ২০২৪ সালের মধ্যে তথ্যপ্রযুক্তি খাতের রফতানি আয় ৫ বিলিয়ন ডলারে উন্নীত করার লক্ষ্যে সরকারের সঙ্গে একাত্ম হয়ে কাজ করছে বেসিস। বর্তমানে তথ্যপ্রযুক্তি খাতের রফতানি আয়ের ৬০ ভাগ আসে কানাডা ও যুক্তরাষ্ট্র থেকে। আমরা কানাডার সঙ্গে বাণিজ্য সম্পর্ক আরও জোরদার করতে চাই। তিনি জানান, চুক্তির ফলে ক্যানচ্যাম বাংলাদেশের সঙ্গে একযোগে কাজ করবে বেসিস। একই সঙ্গে কানাডার বিনিয়োগকারীদের বাংলাদেশে আকৃষ্ট করতে কাজ করবে সংগঠনটি।
আগামী সেপ্টেম্বরে কানাডার টরন্টোতে অনুষ্ঠেয় ১৩তম টরন্টো গ্লোবাল ফোরাম এবং বাংলাদেশ-কানাডা বিজনেস ফোরাম-২০১৯-এ অংশ নেবে বাংলাদেশের ব্যবসায়ী প্রতিনিধি দল। মাসুদুর রহমান বলেন, কানাডার অনেক বিনিয়োগকারী বাংলাদেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাতের বিনিয়োগে আগ্রহী। পাশাপাশি, কানাডায় তথ্যপ্রযুক্তি খাতভিত্তিক বিভিন্ন উদ্যোগও গ্রহণ করা হয়েছে। টেকনোলজি অ্যাসোসিয়েশন অব কানাডা (আইটিএসি), ক্যানচ্যাম বাংলাদেশ, বেসিস যৌথভাবে কাজ করবে। দেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাতের উন্নয়নে একসঙ্গে কাজ করব আমরা। সমঝোতা চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে বেসিস ও ক্যানচ্যাম বাংলাদেশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

পাঠকের মন্তব্য

লাইভ

টপ