সর্বশেষ :

পল্লবীতে জমি দখলের চেষ্টায় জীবনের উপর খলিল বাহিনীর হামলা, মামলা দায়ের

শফিকুর রহমান ০৪:০৩, ১৪ অক্টোবর ২০২০

রাজধানীর মিরপুর পল্লবীর বাউনিয়া বেড়িবাঁধ এলাকায় জমি দখলকে কেন্দ্র করে খলিলুর রহমানের সন্ত্রাসী বাহিনী দিয়ে যুবলীগ নেতা খালেকুজ্জামান জীবনের উপর হামলার অভিযোগ উঠেছে। পল্লবী থানায় মামলা দায়ের, মামলা নং-৩৪।
মামলার বিবরনীতে অভিযুক্ত আসামী যথাক্রমে, ১. মো. খলিলুর রহমান, বয়স (৪৮), পিতা মো. ইউনুস ভান্ডারী ২. মো. জলিল বেপারী, (৬০), ৩. মো. আঃ জব্বার বেপারী (৫৫), ৪. মো. রফিক বেপারী (৪০) ৫. মোঃ রহিম (৪০) ৬. মোঃ সাদ্দাম (৩০) ৭. মোঃ বাবু (২৭) সহ অজ্ঞাত নামা ৪/৫ জন ।
এবিষয়ে খালেকুজ্জামান জীবন বলেন, আমি সুজা উদ্দিন সাহেবের জমির দেখাশোনা করি। গত ১০/১০/২০২০ তারিখ সেনাবাহিনী ১২০ ফিট রোডের ফুটপাতের জায়গার সীমানা প্রাচীর নির্ধারণ করে দিয়ে যায়। ১১/১০/২০২০ তারিখে সকালে উক্ত জায়গার সীমানার পিলার বসাতে কয়েকজন শ্রমিক নিয়ে কাজ করার সময় আসামীগন আমাকে সীমানা প্রাচীরের পিলার বসানোর কাজে বাধা দিয়ে জানায় তাদের সাথে আলোচনা না করে এখানে কাজ করতে পারবো না।  বিবাদীদের সাথে কথা কাটাকাটি হলে বিবাদী গন আমাকে দেখে নিবে বলে ভয় ভীতিও হুমকি দেয়। কোন হুমকিতে আমি কাজ বন্ধ করব না বলে জানালে উপরোক্ত আসামিসহ অজ্ঞাত নামা ৪/৫ জন পল্লবী থানাধীন কালশী রোডস্থ লোহার ব্রীজের উত্তর পশ্চিম পার্শ্বে পাকা রাস্তার উপর হাতে ধারালো দা, লোহার রড, কাঠের বিট নিয়ে আমার উপর অতর্কিত ভাবে হামলা চালায় এবং এলোপাতাড়ি মারপিট করে আমার শরীরের বিভিন্ন স্থানে জখম করে।

তিনি আরো বলেন, আসামি জব্বার বেপারী হত্যার উদ্দেশ্যে আমার মাথায় কোপ দিলে আমার মাথার ডান পার্শ্বে গুরুতর রক্তাক্ত জখম হয়। রফিক বেপারীর লাঠির আঘাতে আমি মাটিতে লুটিয়ে পড়ি তারপর মামলায় অভিযুক্ত আসামীগন আমাকে লোহার রড দিয়ে আমার মাথায় বুকে পিঠে হাতে  এলোপাতাড়ি পিটিয়ে জখম করে। আমার মোবাইল ছিনিয়ে নিয়ে যায়। আমার আর্তচিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এসে উদ্ধার করে।  আসামীরা আমাকে প্রাণে শেষ করে ফেলবে বলে হুমকি দিয়ে যায়। সংবাদ পেয়ে আমার পরিচিত মিঠু তানভীর রুবেল তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসার ব্যবস্থা করে।
এ বিষয়ে মামলার ১নং ও মুল আসামী  খলিলের কাছে জানতে চাইলে তিনি এ সন্ত্রাসী হামলার অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, আমাকে রাজনৈতিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন করার লক্ষে খালিকুজ্জামান নিজেই মাথা ফাটিয়ে আমার নামে মিথ্যা মামলা দিয়েছে।
এ ব্যাপারে মামলার তদন্ত অফিসার এস আই কাওছার মাহমুদ বলেন, এবিষয়ে গত ১২/১০/২০ তারিখ একটি মামলা দায়ের হয়েছে, মামলা নং-৩৪। আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

পাঠকের মন্তব্য

লাইভ

টপ