পুলিশের “নামের ভুলে” বিনা অপরাধে ২৬ দিন কারাভোগ, অবশেষে মুক্তি

নিউজবক্স ডেক্স ১০:২১, ১২ নভেম্বর ২০১৯

কোনো মামলার আসামি নন তিনি। তবু কেবল নামের মিল থাকার কারণেই গ্রেফতার হয়েছিলেন। ২৬ দিন কারাভোগও করতে হয়েছে। শেষ পর্যন্ত আদালতে প্রমাণিত হয়েছে, তিনি মামলার প্রকৃত আসামি নন। একটাকার মুচলেকায় (বন্ড) তার কারামুক্তির আদেশ দিয়েছেন আদালত।
পুলিশের ভুলে বিনা অপরাধে ২৬ দিন কারাভোগ করা ব্যক্তি হলেন মো. রাজন ভূইয়া। তিনি কুমিল্লা জেলার ব্রাক্ষণপাড়া থানার গোপালনগর গ্রামের মৃত আব্দুল মান্নান ভূইয়ার ছেলে। গত ১৬ অক্টোবর  নিজ বাড়ি থেকে তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। আজ সোমবার (১১ নভেম্বর) ঢাকার এক নম্বর দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল ও বিশেষ দায়রা জজ থেকে এক টাকার মুচলেকায় কারামুক্তির নির্দেশ পান তিনি।
রাজন ভূঁইয়াকে কারামুক্তির নির্দেশ দেন বিচারক আবু জাফর মো. কামরুজ্জামান। একইসঙ্গে নির্দোষ রাজন ভূইয়াকে গ্রেফতার করা ব্রাক্ষণপাড়া থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আরশাদের বিরুদ্ধে কেন শান্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে না, আগামী ৪ ডিসেম্বর সে বিষয়ে কারণ দর্শানোর আদেশ দেন তিনি। অন্যদিকে, সংশ্লিষ্ট থানার পুলিশ যেন রাজন বা তার পরিবারকে কোনো হয়রানি না করে, সে নির্দেশও দিয়েছেন বিচারক আবু জাফর মো. কামরুজ্জামান।
আদালত প্রাঙ্গণে রাজন ভূইয়ার আইনজীবী অ্যাডভোকেট নিকুঞ্জ বিহারী আচার্য্য সাংবাদিকদের জানান, পুলিশের হাতে থাকা গ্রেফতারি পরোয়ানায় আসামির নাম ছিল মো. হাবিবুল্লাহ রাজন, পিতা আব্দুল মান্নান। তার গ্রামের বাড়িও ব্রাক্ষণপাড়া থানার গোপালনগর গ্রামে। পুলিশ তাকে ধরতে গিয়ে রাজন ভূইয়াকে গ্রেফতার করে। নাম ও পিতার নামের পার্থক্যের কথা বলা হলেও পুলিশ তা আমলে না নিয়ে নির্দোষ রাজনকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠায়।
অ্যাডভোকেট নিকুঞ্জ বিহারী বলেন, রাজন গ্রেফতার হওয়ার পর আমরা খোঁজ নিয়ে জানতে পাই, ২০১২ সালের ৯ মে রাজধানীর বংশাল থানার তাঁতীবাজার এলাকা থেকে ২৮ পিস নেশাজাতীয় ইনজেকশনসহ হাবিবুল্লাহ রাজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। ওই বছরের ১ জুলাই মামলায় চার্জশিট দাখিলের পর বিচারিক আদালত তার জামিন মঞ্জুর করেন। এরপর থেকেই হাবিবুল্লাহ রাজন পলাতক ছিলেন। পরে ২০১৩ সালের ৬ জুন তার নামে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন আদালত। কিন্তু পুলিশ তাকে ধরতে না পারায় ২০১৮ সালের ১৮ ডিসেম্বর ফের তার নামে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন ঢাকার এক নম্বর দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল ও বিশেষ দায়রা জজ আদালত। ওই পরোয়ানা পেয়েই ব্রাক্ষণপাড়া থানার এসআই আরশাদ ভুল আসামি মো. রাজন ভূইয়াকে গ্রেফতার করেন। এর ফলে বিনা দোষে ২৬ দিন কারাভোগ করতে হলো নির্দোষ রাজনকে।
এদিকে, ওই মাদক মামলার মূল আসামি হাবিবুল্লাহ রাজক গত ৭ নভেম্বর দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল ও বিশেষ দায়রা জজ আদালতে আত্মসমর্পণ করতে এসেছিলেন। কিন্তু ওই সময় রাজন ভূইয়া কারাগারে থাকায় আদালত তার আত্মসমর্পণ গ্রহণ করতে পারেননি।
অ্যাডভোকেট নিকুঞ্জ বিহারী বলেন, এরপর আমরা আদালতে আবেদন করি। আদালত নিশ্চিত হন যে গ্রেফতার হয়ে কারাগারে থাকা মো. রাজন ভূইয়া এ মামলার আসামি নন। তাই আদালত রাজন ভূইয়াকে এই মামলা থেকে অব্যাহতির আদেশ দিয়েছেন।

পাঠকের মন্তব্য

লাইভ

টপ