বৃদ্ধার পাশে দাড়ালেন পঞ্চগড়ের জেলা প্রশাসক সাবিনা

নিউজবক্সবিডি ১০:১৬, ৮ জুলাই ২০১৯

আশি বছরের সেই বৃদ্ধা মাকে মারপিটের অভিযোগে অবশেষে তার ছোট ছেলে অভিযুক্ত ফারুক হোসেনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। রবিবার বিকালে জেলা শহরের রৌশনাবাগ এলাকা থেকে পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করে।
শনিবার রাতে নির্যাতিত বৃদ্ধা বাদী হয়ে ছোট ছেলে ফারুক হোসেন, তার স্ত্রী ইনসানা বেগম এবং নাতি হৃদয়ের বিরুদ্ধে সদর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দেন।
এদিকে খবর পেয়ে পঞ্চগড়ের জেলা প্রশাসক সাবিনা ইয়াসমিন রবিবার দুপুরে পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বৃদ্ধা মাকে দেখতে যান। অশ্রুসিক্ত বৃদ্ধা নিজের ছেলে ও বৌমার নির্যাতনের কথা শোনান জেলা প্রশাসককে। এ সময় জেলা প্রশাসক চিকিৎসদের কাছে বৃদ্ধার চিকিৎসার খোঁজ-খবর নেন এবং চিকিৎসার জন্য তাকে ১০ হাজার টাকা নগদ অর্থ সহায়তা দেন। এছাড়া তার ছেলের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণসহ সার্বিক সহযোগিতার আশ্বাস দেন।
জেলা প্রশাসক সাবিনা ইয়াসমিন বৃদ্ধা মাকে বলেন, ‘আপনার এক ছেলে বের করে দিয়েছেন তো কি হয়েছে- আমরা সবাই আপনার পাশে আছি। এ সময় বৃদ্ধা আবেগে কেঁদে ফেলেন এবং অভিযুক্ত ছেলে ফারুক হোসেনসহ বউমা ইনসানার যথাযথ বিচার দাবি করেন।’
এ সময় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) এহেতেশাম রেজা, পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার প্রতীক কুমার বণিক উপস্থিত ছিলেন।
স্বামীর ভিটাবাড়ি ছেড়ে অন্য ছেলের বাড়ি না যাওয়ায় শনিবার দুপুরে পঞ্চগড় সদর উপজেলার কামাত কাজলদীঘি ইউনয়িনের গলেহা ফুলপাড়া এলাকায় আশি বছরের বৃদ্ধা মা হাফেজা খাতুনকে তার ছোট ছেলে ফারুক হোসেন, বৌ ইনসানা এবং নাতি হৃদয় মারধর করে বাড়ি থেকে বের করে দেন। গুরুতর অসুস্থাবস্থায় বিকালে বৃদ্ধার মেঝ ছেলে তাকে পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন।

পাঠকের মন্তব্য

লাইভ

টপ