সর্বশেষ :

ভূয়া বিয়ে করে কলেজ ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ

সোহেল রানা চৌধুরী, সাপাহার ০২:২০, ২৯ নভেম্বর ২০১৯

নওগাঁর সাপাহারে এফিডেফিটের মাধ্যমে ভূয়া বিয়ে করে এক কলেজ ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে তার প্রাইভেট শিক্ষকের বিরুদ্ধে হয়েছে মামলা। এ বিষয়ে সাপাহার থানায় একটি লিখিত এজাহার দাখিল করেছে ওই কলেজ ছাত্রী বলে জানান।
থানার এজাহার সূত্রে ও ওই ছাত্রীর সাথে কথা বলে জানা যায়, উপজেলার তিলনা বাজার পাড়ার মৃত আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে কুতুবুল আলম (২৫) তিলনা ডিগ্রী কলেজের এইচ এসসি প্রথম বর্ষের ছাত্রীকে ওই কলেজ হতে ১৫ গজ দূরে একটি মাটির রুমে প্রাইভেট পড়াতো। এরই ধারাবাহিকতায় গত ৩ মাস পূর্বে প্রাইভেট টিউটর কুতুবুল ওই ছাত্রীর সাথে মোবাইল ফোনে কথা বলার এক পর্যায়ে নিজের মিষ্টি কথার মায়াজালে জড়িয়ে ফেলে ওই কলেজ ছাত্রীকে। পরবর্তী সময়ে গত ২২ অক্টোবর সকাল আনুমানিক ৯ টার দিকে ওই কলেজ ছাত্রী কুতুবুলের কাছে প্রাইভেট পড়া শেষ করে ১০টার দিকে তিলনা বাজারে যায়। পরে সাজেশন দেওয়ার কথা বলে কতিথ প্রাইভেট শিক্ষক কুতুবুল ওই ছাত্রীকে পুনরায় প্রাইভেট পড়ার রুমে নিয়ে গিয়ে তাকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে জোর পূর্বক ধর্ষণ করে।
সংঘটিত ঘটনার দুইদিন পরে ২৪ অক্টোবর আসামী কুতুবুল ওই কলেজ ছাত্রীকে বিবাহ করেছে মর্মে একটি ২০০ টাকার নন জুডিশিয়াল স্ট্যাম্পে ভূয়া এফিডেফিট তার হাতে দেওয়ার পরে বিষয়টি কাউকে জানাতে নিষেধ করে। পরবর্তী সময়ে ওই এফিডেফিট ভূয়া প্রমানিত হলে ওই ছাত্রী তাকে পুণরায় বিয়ের কথা বললে কুতুবুল তার সাথে সব ধরণের যোগাযোগ বন্ধ করে দিয়ে আত্মগোপন করে। বর্তমানে আসামী কুতুবুলকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছেনা।
এই বিষয়টি নিয়ে এলাকায় ব্যাপক গুঞ্জনের সৃষ্টি হয়েছে বলে জানা গেছে।

পাঠকের মন্তব্য

লাইভ

টপ