সর্বশেষ :

মালিঙ্গার বিদায়ী ম্যাচে উদ্দীপনা কাজ করছে শ্রীলঙ্কা দলে

ক্রীড়াবক্স ১১:৫১, ২৫ জুলাই ২০১৯

সাকিব ও লিটন ছুটিতে, সফরের আগের রাতে চোট পেয়ে ছিটকে গেছেন মাশরাফি আর সাইফউদ্দীন। এ দল নিয়েই শ্রীলঙ্কা সফরে গেছে বাংলাদেশ দল। তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে প্রথম ম্যাচ মাঠে গড়াবে কাল। দুদলের সর্বশেষ দেখা হওয়ার কথা ছিলো সদ্য শেষ হওয়া বিশ্বকাপে। কিন্তু বেরসিক বৃষ্টিতে ভেস্তে গিয়েছিলো বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা ম্যাচটি। যে ম্যাচে নিশ্চিত জয় ধরে রেখেছিলো বাংলাদেশি ভক্তরা। আগামীকাল সেই আক্ষেপ ঘোচানোর ম্যাচও এটা। শুক্রবার তামিমের নেতৃত্বে প্রথমবারের মতো মাঠে নামবে টাইগাররা। কলম্বোর প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে বিকাল সাড়ে তিনটায় শুরু হবে ম্যাচটি। ম্যাচের টসে নামলেই বাংলাদেশ ওয়ানডে দলের ১৪তম অধিনায়ক হবেন তামিম ইকবাল।
এই ম্যাচ ঘিরে বাংলাদেশের চেয়ে বেশি উদ্দীপনা কাজ করছে শ্রীলঙ্কা দলে। কেননা এই ম্যাচের পর ওয়ানডে ক্রিকেটে আর দেখা যাবে না বাহারী চুলের রহস্যময় পেসার লাসিথ মালিঙ্গাকে। এ পেসারকে বিদায় জানানোর জন্য বেশ কিছু আয়োজনও করে রেখেছে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট বোর্ড। তাছাড়া এ সিরিজের পর প্রধান কোচের পদ থেকে বহিষ্কার হবেন চান্দিকা হাথুরুসিংহে। তাই এ সিরিজ দিয়ে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেটের একটা অধ্যায় শেষ হচ্ছে বলাই যায়।
বিশ্বকাপের ব্যর্থতা কাটিয়ে উঠতে বাংলাদেশকে চূড়ান্ত আক্রমণ করতে পারে লঙ্কানরা। কেননা ক্রিকেটে সময়টা ভালো যাচ্ছে না তাদের। দ্বাদশ বিশ্বকাপে শ্রীলঙ্কা ৯টি ম্যাচের মধ্যে ৩টি জয় ও ৪টি হার ছিলো। বাকি ২টি বৃষ্টিতে ভেস্তে গিয়েছিলো। দশটি দলের মধ্যে ষষ্ঠস্থানে থেকেই আসর শেষ করে দেশে ফিরেছিলো দিমুথ করুনারত্নের দল। এবার নিজেদের নতুন করে তৈরি করার পালা। যার প্রথম প্রতিপক্ষ বাংলাদেশ।
সাকিব-মাশরাফি ছাড়া বাংলাদেশ কেমন লড়বে জানতে চাইলে করুনারত্নের হাস্যজ্জ্বোল জবাব, ‘বাংলাদেশ এখন দু-একজনের দল না। দলের সবাই ভালো খেলে। যে কেউই প্রতিপক্ষকে হারানোর ক্ষমতা রাখে। বাংলাদেশকে সহজভাবে নেয়ার প্রশ্নই ওঠে না।’
মালিঙ্গার বিদায়ী ম্যাচে আলাদা কোনো পরিকল্পনা না থাকলেও তাকে জয় উপহার দিতে চান লঙ্কান সেনাপতি। তার ভাষায়, ‘এটা অবশ্যই দুঃখের সংবাদ। আমরা আর তার (মালিঙ্গা) সঙ্গে খেলতে পারবো না। তাকে নিয়ে আলাদা কোনও পরিকল্পনা না করলেও জয় দিয়েই বিদায় জানাতে চাই। কেননা ঘরের মাঠে জয় উপহার দিয়ে বিদায় জানানোই এখন আমাদের মূল লক্ষ্য।’
একই দিন সংবাদ সম্মেলনে এসে টাইগার সেনাপতি তামিম ইকবাল জানালেন সিরিজ জয়ের কথা। তিন ম্যাচের সিরিজ জিতে তবেই দেশে ফিরবেন তিনি। আর তাই যদি হয় তবে সেটা তো দারুণ কিছু হবে। কেননা অধিনায়কের দায়িত্ব নিয়ে প্রথম সফরেই সফলতার সুযোগ কয়জনের হয়!
একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা ৪৫ বার মুখোমুখি হয়েছে। শ্রীলঙ্কার জয়ের পাল্লা অনেক ভারী। ৩৬ ম্যাচে জয়ের বিপরীতে বাংলাদেশের কাছে হেরেছে মাত্র ৭বার। বাকি দুটি ম্যাচের ফলাফল নিষ্পত্তি হয়নি। তামিমের আশা পূরণ করতে হলে কলম্বোয় জয় দিয়ে সফর শুরুর কোনো বিকল্প নেই টাইগারদের।

পাঠকের মন্তব্য

লাইভ

টপ