সর্বশেষ :

শিশু মহরমকে বাঁচাতে অসহায় মায়ের আকুতি

সোহেল রানা চৌধুরী, সাপাহার ০৯:৩৫, ১৯ নভেম্বর ২০১৯

দেশের বিত্তবান, হৃদয়বান ও দানশীল ব্যক্তিদের নিকট সাহায্যের হাত বাড়িয়ে ২ বছর ১ মাস বয়সী শিশু ছেলে মহরমের জীবন বাঁচানোর আবেদন জানিয়েছেন ভূমিহীন হত দরিদ্র গরীব অসহায় প্রতিবন্ধী পিতা ও মাতা। বিত্তবানদের আর্থিক সাহায্যে প্রাণচঞ্চল হয়ে উঠতে পারে কোমলমতি কচি শিশু মহরমের।
নওগাঁর পত্নীতলা উপজেলার আকবরপুর ইউনিয়নের শংকরপুর গ্রামের ইয়াসিন আলী ও সবেদা বেগমের কনিষ্ঠ পুত্র মহরম। শিশু মহরম জন্মগত ভাবে প্রতিবন্ধী ও হৃদ রোগে (হার্ট ফুটা) ভুগছে। গত বুধবার (৬ নভেম্বর) শিশুটিকে ন্যাশলান হার্ট ফাউন্ডেশন হাসপাতাল এন্ড রিসার্স ইনন্সিটিউট-২ শিশু বিভাগে চিকিৎসকের পরামর্শে এনজিওগ্রাম করানোর কথা থাকলেও আর্থিক অসচ্ছলা ও রোগীর শরীরে আয়রনের পরিমান কম থাকায় তা সম্ভব হয়ে ওঠেনি। সকল ধরণের পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে  চিকিৎসক জানান, সার্জারির মাধ্যমে তাকে সুস্থ করে তোলা সম্ভব।
মহরমের মা সবেদা বেগম আকুতির কন্ঠে জানান, বর্তমানে তার টাকা অভাবে সার্জারি করা সম্ভব হচ্ছে না। তাকে জরুরিভাবে হার্ট ফাউন্ডেশন হাসপাতালে নেয়া প্রয়োজন বলে ডাক্তারগণ জানিয়েছেন। পরে ডাক্তারদের পরামর্শ অনুযায়ী সেখানে ভর্তি করা হয়এবং টাকা জোগাড়ের জন্য ১৫ দিনের ছুটি প্রদান করেছেন কর্তব্যরত চিকিৎসকগন।
ইতমধ্যেই বাড়ীর টুকি-টাকী জিনিস পত্র বেঁচে ও বিভিন্ন জনের সহায়তায় প্রায় লক্ষাধিক টাকা খরচ হয় ওই হতদরিদ্র পরিবারের। বর্তমানে বাচ্চাটিকে উন্নত চিকিৎসা ও সার্জারীরর জন্য প্রায় ৩ লক্ষ টাকা দরকার। যা ভূমিহীন হত দরিদ্র গরীব অসহায় প্রতিবন্ধী পিতা ও মাতার পক্ষে এ অর্থ জোগাড় করা সম্ভব হচ্ছে না। সন্তানের মৃত্যু ভাবনা রীতিমতো পাগল করে তুলেছে ভূমিহীন হত দরিদ্র মা-বাবাকে। তাই প্রিয় সন্তানের জীবন বাচাঁতে সমাজের হৃদয়বান স্বচ্ছল-বিত্তশালী মানুষদের আর্থিক সহযোগীতা কামনা করেছেন নওগাঁ জেলার অন্তর্গত পত্নীতলা উপজেলার আকবরপুর ইউনিয়নের শংকরপুর নিবাসী বাবা ইয়াসিন আলী ও মা সবেদা বেগম।
এ ব্যাপারে আকবরপুর ইউপি চেয়ারম্যান কামাল হোসেনের সাথে মুঠোফোনে কথা হলে তিনি ঘটনাটির সত্যতা স্বীকার করেছেন।
সাহায্য পাঠানোর ঠিকানা: মোসাঃ সবেদা বেগম গ্রাম-,শংকরপুর, ইউনিয়ন-আকবরপুর, উপজেলা-পত্নীতলা, জেলা-নওগাঁ।

পাঠকের মন্তব্য

লাইভ

টপ