২১ আগস্ট বাংলাদেশের সবচেয়ে নিন্দনীয় ঘটনা-মির্জা ফখরুল

নিউজবক্স ডেক্স ১০:৩১, ২৫ আগস্ট ২০১৯

২১ আগস্ট শেখ হাসিনাসহ আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দের ওপর গ্রেনেড হামলাকে বাংলাদেশের সবচেয়ে নিন্দনীয় ঘটনা হিসেবে অভিহিত করেছে বিএনপি। শনিবার (২৪ আগস্ট) সন্ধ্যায় রাজধানীর গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে একথা বলেন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।
বিএনপির স্থায়ী কমিটির বৈঠক শেষে নিয়মিত ব্রিফিংয়ের অংশ হিসেবে দলের অবস্থান তুলে ধরেছেন মির্জা ফখরুল। তিনি বলেন, ‘২১ আগস্টের ঘটনা নিঃসন্দেহে বাংলাদেশের সবচেয়ে নিন্দনীয় ঘটনা। কিন্তু সরকারপ্রধান এনিয়ে যা বলছেন, তা সম্পূর্ণ রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত।’
এই ঘটনাকে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে উপস্থাপন করা ঠিক না বলেও অভিমত ব্যক্ত করেছেন বিএনপির মুখপাত্র।
মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আমরা সরকারে থাকা অবস্থায় এফবিআইকে বাংলাদেশে নিয়ে এসেছি। তদন্ত করার জন্য তাদের সহযোগিতা করেছিলাম। মুফতি হান্নানকে গ্রেফতার আমরাই করেছি।’
দলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর ব্যাপারে সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির মহাসচিব জানান, আগামী ১ সেপ্টেম্বর বিএনপির ৪১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে পূর্বনির্ধারিত শিডিউল পরিবর্তিত হয়েছে। এক্ষেত্রে স্থায়ী কমিটির সভায় সিদ্ধান্ত হয়, প্রতিষ্ঠাবাষিকীর র‌্যালি হবে ২ সেপ্টেম্বর ও আলোচনা সভা একদিন এগিয়ে এনে ১ সেপ্টেম্বর আয়োজন করা হবে।
মির্জা ফখরুল আরও জানান, স্থায়ী কমিটির বৈঠকে জিয়া এতিমখানা ট্রাস্ট মামলায় হাইকোর্টর আদেশের বিরুদ্ধে পরবর্তী আইনি পদক্ষেপ নেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে।
বিএনপির চেয়ারপারসনের মিডিয়া উইং সদস্য শায়রুল কবির খান জানান, স্থায়ী কমিটির বৈঠক শেষে মির্জা ফখরুল ব্রিফ করেন। দলের স্থায়ী কমিটির আগামী বৈঠক এগিয়ে নেওয়া হয়েছে এবং সময়সীমা বৃদ্ধি করা হয়েছে। এর আগে, প্রতি সপ্তাহে এই কমিটির বৈঠক অনুষ্ঠিত হতো। এখন থেকে স্থায়ী কমিটির পরবর্তী বৈঠকগুলো ১৫ দিন পরপর বিকাল ৪টায় অনুষ্ঠিত হবে।
স্থায়ী কমিটির দুই ঘণ্টার বৈঠকে মহাসচিব ছাড়া আরও উপস্থিত ছিলেন ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, ব্যারিস্টার জমিরউদ্দিন সরকার, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, আবদুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, সেলিমা রহমান ও ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু।

পাঠকের মন্তব্য

লাইভ

টপ